Detailed Study on the life of Eskimo | এস্কিমোর জীবনের উপর একটি বিস্তারিত অধ্যয়ন

01. Origin of Eskimo: 

As per the ‘Alaska Native Language Center at the University of Alaska Fairbanks’, the term ‘Eskimo’ actually came from the French word ‘Esquimaux’, meaning one who nets snowshoes. From the Montagnais word ‘Eskimo’ means meat eater. In the Algoskine language ‘Eskimo’ means one who eats raw meat. Eskimos have two main branches.

One branch is located in western Alaska called the ‘Yupik’ (or Yuit) Yupik tribe of south-central Alaska and the other branch is called the ‘Inuit’ tribe in the far east of Russia. So now they are not called Eskimo but are more popularly known as Yupik and Inuit, in some areas they are known as Inupiat. In fact, they are descendants of the ‘Thule’ culture of the islands near the Arctic Circle.

 02. Location where Eskimos can be found:

Where nature is stingy, where their year-round sunlight is almost elusive, where islands are isolated by very cold seas and bays, where life and livelihood are very hard, the world’s most primitive people live there. The Yupik and Inuit indigenous peoples of the Eskimos are not the exception.

  • The Inuit indigenous peoples of Eskimos live in Siberia, Alaska, in the northwestern Arctic Circle, on the outskirts of Nunavut, Quebec, and Greenland, and on the shores of the Bering Sea. Proto-Inuit was the ancestor of all modern Inuit.
  • They developed in coastal Alaska by the 1000s and spread eastward across northern Canada, reaching Greenland by the 13th century. It is believed that the Vikings had contact with the Proto-Inuit indigenous peoples. The Proto-Inuit were carriers of the Thule culture. They have replaced the ancient Dorset culture. 
  • The Yupik Indigenous people live in Alutic, or Sugpiaq, western Alaska, and south-central Alaska. Yupik or Central Alaskan Yupiks live along the Yukon-Cuscoquim Delta, along the northern shores of the Cuscocoim River and Bristol Bay, in the Gulf of Nushagak, and on the Naknek River near the northern Alaska Peninsula and the Alaska Aegean Gulf. The Siberian Yupik, includes the Nouakchott, the Chaplin’s, the Russian Far East, the Sibenik, and Western Alaska, St. Lawrence Island.

03. Physical Environment where Eskimos stay: 

a. Climate:

Eskimos are mainly inhabitants of the tundra climate near the Arctic Circle. Tundra Climate is a very cold region covered with treeless snow near the North Pole of the region. Winter here is long-lasting. During this time the average temperature stays below freezing for about nine months of the year. Summer is almost invisible. It goes without saying that it does not rain. The snow in this region is dry and light and it causes blizzards with strong winds.

b. Vegetation:

The word tundra means treeless region. Due to the extreme cold, it can be said that stemmed trees are not seen. Algae and small grasses and shrubs can be observed in this region. However, there is some sunlight in the southern region. So birch and willow trees grow. 

c. Animals:

Warm-blooded animals live in the tundra region. Moreover, due to climatic conditions, the skin of animals is covered with thick and thick fur. The number of animals in this region is also quite low. Only eight species of terrestrial animals are found here.

Notable among them are white bears, polar foxes, kangaroos, and rats. The number of bird species is high here. However, 114 of the 160 migratory species are marine. Notable among the mammals are polar rabbits, polar foxes, and owls among birds. Among the marine mammals, Shil and Sindhughatak are the main ones.

04. Population of Eskimos:

The Eskimos are the most widespread indigenous people in the world. These people are scattered over an area of ​​more than three and a half thousand miles. About 50,000 Eskimos live in the Arctic Circle and its surrounding countries.

According to the 2018 census, there are about 2000 Eskimos in Siberia, about 2500 in Alaska, 10000 in Greenland, 10000 in Canada, and 3000 Eskimos in Labrador.

05. Shelter of Eskimos:

Due to the climatic conditions, their homes demand different features.

It is winter here most of the year. In winter they live in houses made of ice. These houses are called ‘Igloo’. When they go hunting in the winter, they build a temporary igloo about 2 meters in diameter in just a few hours. When a few families live together, they make relatively large igloos. They light a lamp in the igloo with summer algae and seal fish fat. In the summer they live in tents made of seal skin. These tents are called ‘tupic’. Many seals make this tent by sewing fish skins and sticking them to wooden frames.

06. Physical Features:

The elongated body is usually very strong. Their average height is 163 cm. Their skin color is yellow and their hair color is black. A round body shape and heavy clothing seem a bit shorter figure.

07. Hunting & Food gathering:

Winter fishing is a livelihood for Eskimos. In the native language, the prey is called ‘Mouchak’. Which literally means wait. In winter, they dig holes in the ice-covered sea and wait with their weapons for prey next to the hole, which is the main feature of their prey’s livelihood. The Eskimos make a boat called a kayak. This boat is made of whale bones and seal fish skin.

During the winter, they roam with hounds. In Greenland, kayaks are used not only for navigation but also for hunting large animals. The harpoon made by the Eskimos is a special weapon used in hunting. They hunt whales, seals, and seahorses. These are used in the preparation of Eskimo food, clothing, and various household items.

08. Herd:

Hunting, as well as animal husbandry, is part of the livelihoods of the Eskimos. However, sheep rearing is suitable for the climate here. Eskimos gather in one place in the spring with a flock of sheep. Most likely take them to summer fields. They make cheese from some milk for winter consumption. The pet Reindeer and musk deer.

09. Clothing:

They wear full-body coverings to protect themselves from extreme cold. They make clothing from the feathers of birds, and wool from reindeer and other animals. Eskimo women mainly make clothes. They usually use glasses to protect the eyes from the reflection of sunlight on the ice. Fancy spectacles made of fancy ivory are sometimes seen using them.

10. Future:  

The hyena’s vision of civilized man is gradually expanding towards the resources of the Arctic Circle. So its detrimental effect on the life and livelihood of the Eskimos can be noticed. Among them are the recent use of guns for hunting and the use of improved speedboats, which are making a huge difference in the way of life of Eskimos in the future. With the light of civilization shining, the deadly disease of civilized people’s uncivilized behavior is spreading among them. The existence of their culture is going to disappear with the passage of time.

11. Conclusion:

Each nation has its own unique characteristics and traditions. Eskimos are not the exception. At present, with the advent of modern civilization, their lives and livelihoods have changed. The use of iron needles instead of bone needles has greatly enhanced their skills in clothing and boat preparation.

The use of speed boats instead of boats, and the use of guns instead of harpoons, has made their hunting much easier. Flour and tea have found a place in their diet. Helicopters and airlines have greatly reduced their isolation. It is hoped that in the near future they too will join hands with the civilized people in the great task of developing the world.

এস্কিমোর জীবনের উপর একটি বিস্তারিত অধ্যয়ন

1. উৎপত্তি:

‘আলাস্কা ফেয়ারব্যাঙ্কস বিশ্ববিদ্যালয়ের আলাস্কা নেটিভ ল্যাঙ্গুয়েজ সেন্টার’ অনুসারে, ‘এস্কিমো’ শব্দটি আসলে ফরাসি শব্দ ‘এসকুইমাক্স’ থেকে এসেছে, যার অর্থ তুষার জুতো বুননকারী । মন্টাগনেস শব্দ ‘এস্কিমো’ -র অর্থ মাংস ভক্ষক। অ্যালগোস্কাইন ভাষায় ‘এস্কিমো’ মানে যিনি কাঁচা মাংস খান।

এস্কিমোদের প্রধান দুটি শাখা রয়েছে। একটি শাখা পশ্চিম আলাস্কা দক্ষিণ মধ্য আলাস্কা এর  Yupik (or Yuit) ইউপিক আদিবাসী নামে এবং অপর শাখাটি রাশিয়ার প্রত্যন্ত পূর্বে (Inuit) ইনুইট  আদিবাসী নামে অবস্থান করে। 

তাই বর্তমানে এরা এস্কিমো নামে অভিহিত না হয়েই ইউপিক ও ইনুইট  নামে অধিক পরিচিত। কিছু এলাকায় তারা  ইনুপিট নামে পরিচিত।

   প্রকৃতপক্ষে এরা (Thule culture of arctic Island) সুমেরু বৃত্তের নিকটবর্তী দ্বীপসমূহের ‘থুলে’ সংস্কৃতির বংশধর। 

2. অবস্থান:

প্রকৃতি যেখানে কৃপণা, সারাবছর সূর্যের আলো যেখানে প্রায় অধরা,  অতি শীতল সমুদ্র ও উপসাগর বিচ্ছিন্ন বিভিন্ন দ্বীপ অঞ্চলে জীবন ও জীবিকা যেখানে অত্যন্ত কঠিন কঠোর কষ্ট সাধ্য সেখানেই  পৃথিবীর যত আদিম জনগোষ্ঠীর বাস। এস্কিমোদের ইউপিক ও ইনুইট আদিবাসী জনগোষ্ঠী  তার ব্যতিক্রম নয়। 

  • এস্কিমোদের ইনুইট  আদিবাসী জনগোষ্ঠী সাইবেরিয়া, আলাস্কা, উত্তর-পশ্চিম  সুমেরু বৃত্ত প্রদেশের দ্বীপ অঞ্চল- নুনাভাট, কুইবেক ও গ্রীনল্যান্ডের প্রান্তবর্তী অঞ্চলে এবং বেরিং সাগর উপকূলে বসবাস করে। প্রোটো-ইনুইট ছিল সমস্ত আধুনিক ইনুইটের পূর্বপুরুষ। তারা 1000 সালের মধ্যে উপকূলীয় আলাস্কায় বিকশিত হয়েছিল এবং উত্তর কানাডা জুড়ে পূর্ব দিকে প্রসারিত হয়েছিল, 13 শতকের মধ্যে গ্রিনল্যান্ডে পৌঁছেছিল।এমনটাই মনে করা হয় যে ভাইকিংদের সাথে প্রোটো-ইনুইট আদিবাসী জনগোষ্ঠীর  যোগাযোগ ছিল।প্রোটো-ইনুইট ছিল থুলে সংস্কৃতির বাহক। তারা প্রাচীন ডরসেট সংস্কৃতি প্রতিস্থাপন করেছে।
  • ইউপিক আদিবাসী জনগোষ্ঠীর আলুটিইক, বা সুগপিয়াক পশ্চিম আলাস্কা  ও দক্ষিণ মধ্য আলাস্কাতে বসবাস করে। ইউপিক বা মধ্য আলাস্কান ইউপিকরা ইউকন-কুস্কোকউইম ডেল্টা, কুস্কোকউইম নদী এবং ব্রিস্টল উপসাগরের উত্তর উপকূল বরাবর নুশাগাক উপসাগর এবং নাকনেক নদীতে উত্তর আলাস্কা উপদ্বীপ এবং আলাস্কার এজেজিক উপসাগরের  কাছাকাছি উপকূলীয় অংশে বসবাস করে।

সাইবেরিয়ান ইউপিক, যার মধ্যে নওকান, চ্যাপলিনো এবং রাশিয়ান দূরপ্রাচ্যের সিরেনিক এবং পশ্চিম আলাস্কার সেন্ট লরেন্স দ্বীপ অঞ্চলে বসবাস করে।

3. প্রাকৃতিক পরিবেশ:

  • জলবায়ু: এস্কিমোরা প্রধানত সুমেরু বৃত্তের কাছাকাছি তুন্দ্রা জলবায়ু অঞ্চলের অধিবাসী। তুন্দ্রা জলবায়ু অঞ্চল অঞ্চল এর উত্তর মেরু নিকটবর্তী বৃক্ষহীন তুষার আবৃত  অতি শীতল অঞ্চল। এখানে শীতকাল দীর্ঘস্থায়ী। এই সময় বছরের প্রায় নয় মাস গড় তাপমাত্রা হিমাঙ্কের নিচে থাকে। গ্রীষ্মকাল  প্রায় দেখাই যায় না। বৃষ্টিপাত হয় না বললেই চলে। এই অঞ্চলের বরফ শুষ্ক ও হালকা এবং প্রবল বাতাসে তা তুষারঝড় সৃষ্টি করে। 
  • স্বাভাবিক উদ্ভিদ: তুন্দ্রা কথার অর্থ হল বৃক্ষহীন অঞ্চল। অত্যধিক শীতের কারণে কান্ডযুক্ত গাছ দেখা যায় না বললেই চলে। এই অঞ্চলের শৈবাল ও ছোট ছোট তৃণজাতীয় ও লতাগুল্ম লক্ষ্য করা যায়। তবে দক্ষিণ অঞ্চলে কিছুটা সূর্যালোক পাওয়ায়। তাই  বার্চ  ও  উইলো বৃক্ষ জন্মায়।
  • জীবজন্তু: তুন্দ্রা অঞ্চলে উষ্ণ রক্তের প্রাণীর বাস। তাছাড়া জলবায়ুগত কারণে প্রাণীদের  ত্বক পুরু  ও ঘন লোম যুক্ত হয়। এই অঞ্চলের জীবজন্তুর পরিমানও যথেষ্ট কম।  এখানে মাত্র  আট প্রজাতির স্থলজ প্রাণীর দেখা মেলে। তাদের মধ্যে মধ্যে সাদা  ভাল্লুক, মেরু শিয়াল, ক্যাঙ্গারু  ও ইঁদুর উল্লেখযোগ্য। পাখির প্রজাতি সংখ্যা এখানে বেশি। তবে বিচরণশীল প্রজাতির 160 টির মধ্যে 114 টি সামুদ্রিক। প্রাণীদের স্তন্যপায়ী প্রাণীদের মধ্যে মেরু খরগোশ, মেরু শিয়াল এবং পাখিদের মধ্যে পেঁচা উল্লেখযোগ্য। সামুদ্রিক স্তন্যপায়ী প্রাণীদের মধ্যে শীল  ও সিন্ধুঘটক প্রধান ।

4. জনসংখ্যা: 

এস্কিমোরা পৃথিবীর সর্বাধিক বিস্তৃত আদিবাসী জনগোষ্ঠী। এই জনগোষ্ঠী প্রায় সাড়ে তিন হাজার মাইলের বেশি অঞ্চলে ছড়িয়ে ছিটিয়ে বাস করে। প্রায় 50 হাজারের  মত এস্কিমো সুমেরু বৃত্ত প্রদেশ অঞ্চলে  এবং তার আশেপাশের দেশগুলিতে বাস করে।

2018 জনসংখ্যা অনুসারে সাইবেরিয়াতে প্রায় 2000, আলাস্কা তে প্রায় 2500, গ্রীনল্যান্ডের 10000, কানাডায় 10000, এবং ল্যাব্রাডর এ 3000 এস্কিমোরা বসবাস করে। 

5. বাসগৃহ:

জলবায়ুগত কারণে এদের বাসগৃহ  পৃথক বৈশিষ্ট্যের দাবি রাখে।

বছরের বেশিরভাগ সময় এখানে শীতকাল। শীতকালে এরা বরফের তৈরি ঘর গুলিতে বসবাস করে। এই ঘরগুলি কে  ‘ইগলু’ বলে। শীতকালে যখন এরা শিকার করতে যায়, তখন সেই স্থানে মাত্র  কয়েক ঘণ্টার মধ্যেপ্রায় 2 মিটার ব্যাস যুক্ত  অস্থায়ী ইগলু তৈরি করে ফেলে। কয়েকটি পরিবার যখন একসঙ্গে থাকে তখন অপেক্ষাকৃত বড় মাপের ইগলু তৈরি করে। গ্রীষ্মকালের সংগৃহীত শৈবাল এবং  শীল মাছের চর্বি দিয়ে এরা ইগলুর মধ্যে প্রদীপ জ্বালায়। গ্রীষ্মকালে এরা শীল মাছের চামড়ার তৈরি তাঁবুতে বাস করে। এই তাঁবুঘর গুলি কে এরা ‘টিউপিক’ বলে। অনেকগুলি শীল মাছের চামড়া সেলাই করে কাঠের ফ্রেম দ্বারা আটকে  এই তাঁবু তৈরি করে। 

6. শারীরিক বৈশিষ্ট্য:

সাধারণত দীর্ঘদেহী অত্যন্ত বলিষ্ঠ প্রকৃতির হয়। এদের গড় উচ্চতা 163 সেন্টিমিটার। এদের গায়ের রং পিতাভ ও চুলের রঙ কালো হয়। গোলাকৃতি দেহের গঠন এবং ভারী পোশাকে কিছুটা বেটে মনে হয়।

7. শিকার ও খাদ্য সংগ্রহ:

শীতকালে শীল মাছ শিকার করা এস্কিমোদের প্রদান জীবিকা। দেশীয় ভাষায় শিকারকে ‘মৌচাক’ বলে।  যারা আক্ষরিক অর্থ অপেক্ষা করা।  শীতকালে বরফে ঢাকা সমুদ্রের উপর গর্ত করে, গর্তের পাশে শিকারের জন্য অস্ত্র নিয়ে অপেক্ষা কর এদের জীবিকার প্রধান বৈশিষ্ট্য। এস্কিমোরা ‘কায়াক’ নামক নৌকা তৈরি করে। এই নৌকা তিমি মাছের হাড় ও শীল মাছের চামড়া দিয়ে তৈরি হয়। শীতের সময় এরা শিকারি কুকুর নিয়ে ঘুরে বেড়ায়। গ্রিনল্যান্ডে ‘কায়াক’ নৌকা কেবলমাত্র যাতায়াতের জন্য নয়  বড় বড় প্রাণী শিকারের জন্য ব্যবহৃত হয়। এস্কিমোদের তৈরি ‘হারপুন’ শিকারের ব্যবহৃত অস্ত্র বিশেষ। শীল মাছের সঙ্গে সিন্ধুঘোটক ও তিমি মাছ শিকার করে। এগুলি এস্কিমোদের  খাদ্য  পোশাক ও বাসগৃহের বিভিন্ন উপকরণ প্রস্তুতিতে ব্যবহৃত হয়।

8. পশুপালন:

জীবজন্তুর শিকারের সঙ্গে সঙ্গে পশুপালন এস্কিমোদের একটি অন্যতম জীবিকা। তবে এদের মধ্যে ভেড়া প্রতিপালন এখানকার জলবায়ুর জন্য উপযুক্ত। ভেড়ার দল নিয়ে এস্কিমো বসন্তকালে  এক জায়গায় জড়ো হয়। খুব সম্ভবত  তাদের গ্রীষ্মকালীন ক্ষেতে নিয়ে যায়। শীতকালের খাওয়ার জন্য কিছু দুধ  থেকে চিজ তৈরি করে এরা রেখে দেয়।  বলগা হরিণ কস্তুরী মৃগ এরা প্রতিপালন করে। 

9. পোশাক-পরিচ্ছদ:  

অত্যধিক শীতের থেকে রক্ষা পেতে এরা সরা শরীর ঢাকা পোশাক পরিধান করে। পাখির পালক, বলগা হরিণ ও ও অন্যান্য পশুর লোম থেকে এরা পোশাক তৈরি করে। এস্কিমো মহিলারা প্রধানত পোশাকগুলো তৈরি করে।   বরফের উপর সূর্যের আলোর প্রতিফলনের থেকে চোখ কে বাঁচাতে এরা সাধারণত চশমা ব্যবহার করে। মাঝে মাঝে  সৌখিন হাতির দাঁতের তৈরি সৌখিন চশমা  এদের ব্যবহার  করতে দেখা যায়। 

10.  ভবিষ্যৎ:

সুমেরু বৃত্ত প্রদেশ অঞ্চলের সম্পদের দিকে সভ্য মানুষের হায়নার দৃষ্টি  ক্রমশ প্রসারিত হচ্ছে। তাই এস্কিমোদের জীবন ও জীবিকায় তার ক্ষতিকারক প্রভাব লক্ষ্য করা যায়। এদের মধ্যে সাম্প্রতিক শিকারের জন্য বন্দুকের ব্যবহার এবং উন্নততর স্পিডবোটের ব্যবহার আগামী দিনের এস্কিমোদের জীবনযাত্রা যাত্রায় ব্যাপক পরিবর্তন নিয়ে আসছে। সভ্যতার আলো আলোর সাথে সাথে,  সভ্য মানুষের অসভ্য আচরণের মরণব্যাধি এদের মধ্যে সংক্রমিত হচ্ছে। সময়ের হাত ধরে এদের  সংস্কৃতির অস্তিত্ব তাই ক্রমশ  বিলীন হতে চলেছে।

11.উপসংহার:

প্রত্যেকটি জাতির একটি নিজস্ব স্বকীয় বৈশিষ্ট্য ও পরম্পরা বর্তমান। এস্কিমোদের ক্ষেত্রে ও তা ব্যতিক্রম নয়।  বর্তমানে আধুনিক সভ্যতার সংস্পর্শে এদের জীবন ও জীবিকায় পরিবর্তনের ছোঁয়া লেগেছে। হাড়ের সুচের বদলে লোহার সুচ এর ব্যবহার, পোশাক ও নৌকা প্রস্তুতিতে এদের দক্ষতাকে বাড়িয়ে তুলেছে বহুগুণ। নৌকার পরিবর্তে স্পিড বোর্ড এর ব্যবহার, হারপুন এর পরিবর্তে বন্দুকের ব্যবহার, এদের শিকার কার্যকে অনেক সহজ করে তুলেছে।  ময়দা ও চা এদের খাদ্যতালিকায়  স্থান পেয়েছে। হেলিকপ্টার ও বিমান পরিষেবা তাদের বিচ্ছিন্নতাকে অনেকাংশেই কমিয়ে দিয়েছে। আশা করা যায় অদূর ভবিষ্যতে এরাও সভ্য মানুষের সঙ্গে সমানতালে পৃথিবীর উন্নয়নের বৃহৎ কর্মযজ্ঞে মিলিত হবে। 

FAQ | সচরাচর জিজ্ঞাস্য

What is the meaning of Eskimo?

From the Montagnais word ‘Eskimo’ means ‘meat eater’. In the Algoskine language ‘Eskimo’ means ‘one who eats raw meat’.

Is it OK to say Eskimo? 

Yes. Eskimos are more popularly known as Yupik and Inuit. Eskimos have two main branches. One branch is located in western Alaska called the ‘Yupik’ (or Yuit) Yupik tribe of south-central Alaska and the other branch is called the ‘Inuit’ tribe in the far east of Russia.

Do Eskimos still exist? 

Yes, they exist, but now they are not called Eskimo. They are more popularly known as Yupik and Inuit.

What race is Eskimo?

Eskimos are descendants of the ‘Thule’ culture of the islands near the Arctic Circle. “Eskimo” refers to two or three ethnic groups. They are the Yupik, the Inuit, and the Inupiat. The 1st two groups are mainly recognized in the present day.

Do Eskimos still live in igloos?

Yes. In winter they live in houses made of ice. These houses are called ‘Igloo’. When they go hunting in the winter, they build a temporary igloo about 2 meters in diameter in just a few hours. When a few families live together, they make relatively large igloos. 

What is Eskimo kiss?

Inuit Group of Eskimos Call Eskimo Kisses “Kunik”.  A “kunik” is a traditional greeting in the Inuit Eskimo culture. It is typically used only between family members. It isn’t just nose-to-nose contact. The “kunik” involves pressing one’s nose and upper lip to the skin of the other person in the same family.

What is a nose kiss called?

An Eskimo kiss, nose kiss, or nose rub, is a traditional greeting in the Inuit Eskimo culture. It is the act of pressing the tip of one’s nose against another’s nose, usually interpreted as a friendly greeting gesture. An actual ‘Eskimo kiss’ is called a ‘kunik’.

What language do Eskimos speak?

Unangam Tunuu (Aleut) is a single language with two surviving dialects. Yupik group of Eskimos, spoken in Siberia and southwestern Alaska, and the Inuitgroup of Eskimos, spoken in northern Alaska, Canada, and Greenland. Each division includes several dialects.

Why is Eskimo offensive?

The word Eskimo is an offensive term. In the Algoskine language ‘Eskimo’ means ‘one who eats raw meat’. Where nature is stingy, where their year-round sunlight is almost elusive, where islands are isolated by very cold seas and bays, where life and livelihood are very hard, Eskimos live there. The uncomfort nature makes them offensive.

Leave a Reply

Your email address will not be published.